রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০১:২৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
চলে গেলেন কবি আল-মাহমুদ জুড়ীতে উপজেলা নির্বাচনে সতন্ত্র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা মোঈদ ফারুকের মতবিনিময় সভা পরিনত হলো বিশাল জনসভায়। প্রশিক্ষণার্থীদের সনদপত্র প্রদান করল জুড়ীর হেক্সাস জুড়ীতে উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হচ্ছেন, মুক্তিযোদ্ধা এম, এ, মুঈদ ফারুক ইজতেমার কারণে এসএসসির তিন বিষয়ের পরীক্ষা পিছিয়েছে উপজেলা নির্বাচনে মৌলভীবাজারে নৌকার প্রার্থী যারা সিদ্ধান্ত পরিবর্তনঃ উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা পাবেন নৌকা ক্যান্সার আক্রান্ত মায়ের চিকিৎসায় সহযোগিতা চান যুবলীগনেতা চাম্পা ইউরোপ প্রবাসী সুলতান আহমদের বিরুদ্ধে অপ-প্রচার প্রতিদিন একটি ডিম খান হৃদরোগের ঝুঁকি কমান
রাজনীতিতে সৌহার্দ্য কুলাউড়ায় রেনু-সলমান এক মঞ্চে

রাজনীতিতে সৌহার্দ্য কুলাউড়ায় রেনু-সলমান এক মঞ্চে

 

মিফতাহ আহমেদ লিটন/মহিউদ্দিন রিপন,কুলাউড়া থেকেঃ 

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮ ইং যত ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে মানুষের আগ্রহ আসলে কি হচ্ছে ৩০ ডিসেম্বর।

মৌলভীবাজার-২ এই আসনটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন এবারের নির্বাচনে কারন এখানে নৌকা প্রতীকে মহাজোটের প্রার্থী হয়েছেন বিকল্প ধারার এম এম শাহিন আর ধানের শীষ প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন সাবেক ডাকসু ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর।তবে সমীকরনে এসেছে পরিবর্তন পাল্টে গেছে ভোটের হিসেব নিকাশ কারন এই মুহূর্তে কুলাউড়া আওয়ামীলীগের একটাই টার্গেট সেটা হলো নৌকাকে তীরে ভিড়ানো।স্থানীভাবে জানা যায়,নৌকা কে বিজয়ী করতে কেন্দ্র ও দলীয় সিদ্ধান্তে এক হয়ে কাজ করছেন দুই মেরুতে অবস্থান করা কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রেনু ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শফি আহমদ সলমান।তারা ইতিমধ্যে কিন্তু উপজেলা আওয়ামীলীগ কে সংগঠিত করতে কাজ করে  যাচ্ছেন।সংবাদ সংগ্রহ করতে সরেজমিনে সেখানে উপস্থিত হয় মৌরভীবাজার টাইমস্ টিম, বরমচাল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের জনসভা ছিল ২১ ডিসেম্বর বিকেল ৩টায়।ইউনিয়নের সকল ওয়ার্ড থেকে মিছিল নিয়ে নেতাকর্মীরা উপস্থিত হতে থাকে সভাস্থলে আর ৯টায় সেখানে উপস্থিত হন মহাজোটের প্রার্থী এম এম শাহিন তার সাথে মঞ্চে উঠেন রেনু ও সলমান। দুই মেরুর রাজনৈতিক কে এক সাথে দেখে উচ্চস্বরে কর্মীরা স্লোগানে মেতে উঠে।কানায় কানায় পরিপূর্ণ বরমচাল ইউনিয়ন মাঠে দীর্ঘ সময় চলে সভা।স্থানীয় নেতা কর্মীদের সাথে আলাপে জানা যায়,রবমচাল এবং ভাটেরা এ দুই ইউনিয়ন হলো আওয়ামীলীগের দূর্গ সেখানে আঘাত হানা অসম্ভব। পাশাপাশি পুরো কুলাউড়ায় আওয়ামীলীগ কে বিজয়ী করতে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে স্থানীয় নেতৃবৃন্দকে।

বরমচালের মাসুম আহমেদের সাথে আলাপ করে জানা যায়,তারা বেশ উৎসবমূখর পরিবেশে প্রচার প্রচারনা করছেন।৩০ডিসেম্বর তারা সকল ভেদাভেদ ভুলে নৌকা প্রতীক বিজয়ী করবেন বলে জানান।স্থানীয় একজন ব্যবসায়ীর সাথে কথা বলে জানা গেলো,তারা বেশ শান্তিতে ব্যবসা বানিজ্য করছেন,তাই জনবান্ধন নেতা কে তারা নির্বাচন করতে আগ্রহী,তবে যিনি এলাকায় অবস্থান করবেন এবং এলাকার সাথে যোগাযোগ রাখবেন তাদের পছন্দ এমন প্রার্থী।

এদিকে রেনু ও সলমান এক হয়ে কাজ করায় এই মুহূর্তে কুলাউড়া আওয়ামীলীগের সর্বস্থরের নেতাকর্মীরা বেশ আত্মবিশ্বাসী। টিলাগাওঁ ইউনিয়ন,আওয়ামীলীগ নেতা লোকমান হোসেন মনে করেন,তারা এক হয়ে কাজ করলে নৌকা কাঙ্ক্ষিত ফলাফল অর্জন করবে।কুলাউড়া উপজেলা বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখা গেল নির্বাচনী প্রচারনা বেশ জমজমাটভাবে চলছে।রেনু ও সলমান এক হওয়ায় বেড়ে আকর্ষণ ও জমছে উঠছে আওয়ামীলীগের প্রচার ও প্রচারনা।নেতাকর্মীরা বেশ আনন্দিত।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




All rights reserved: moulvibazartimes.com
Design & Developed BY Popular-IT.Com