রবিবার, ২৫ অগাস্ট ২০১৯, ০৭:০২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বাংলাদেশে ডেঙ্গু জ্বর প্রতিরোধে যা করণীয় প্রায় চার বছর ধরে ভারতের আসামের কারাগারে হবিগন্জের কিশর ডেঙ্গু জ্বর ও তার প্রাকৃতিক চিকিৎসা দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ডাঃ আক্তার হোসেন লন্ডনে জুড়ি ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউ,কে-এর ইফতার মাহফিল অনুষ্টিত ইউনানী-আয়ুর্বেদিক বিকল্প চিকিৎসা নয়, এটাই মূল চিকিৎসা, এ চিকিৎসা পদ্ধতির চিকিৎসকদের হয়রানী বন্ধ করতে হরে। বাংলাদেশে ইউনানি, আয়ুর্বেদিক এবং হোমিওপ্যাথিক কাউন্সিল গঠনের সুপারিশ দ্রুত কার্যক্রম গ্রহণ করা প্রয়োজন – ডাঃ মোঃ খায়রুল আলম সিলেট বিভাগে কাল পরিবহন ধর্মঘট ভূমি ব্যবস্থাপনায় সম্মননা পেলেন জুড়ীর ইউএনও শবে বরাত সৌভাগ্য ও অনুকম্পা অর্জনের উপায়
ইউনানী-আয়ুর্বেদিক বিকল্প চিকিৎসা নয়, এটাই মূল চিকিৎসা, এ চিকিৎসা পদ্ধতির চিকিৎসকদের হয়রানী বন্ধ করতে হরে।

ইউনানী-আয়ুর্বেদিক বিকল্প চিকিৎসা নয়, এটাই মূল চিকিৎসা, এ চিকিৎসা পদ্ধতির চিকিৎসকদের হয়রানী বন্ধ করতে হরে।

ডাঃ আব্দুল হান্নান
ইউনানী ও আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের উন্নয়নের লক্ষ্যে এ উপমহাদেশের দেশগুলো তাদের নিজেস্ব চিকিৎসা পদ্বতির উন্নয়নে অনেক গুরুত্ব পূৃর্ণ সিদ্বান্ত গ্রহন করেছে। আমাদের সরকার ও মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর সদিচ্ছা থাকার পরও যা আমরা অধ্যাবধি  গ্রহন করতে পারিনি। আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত সরকার দেশীয় চিকিৎসা পদ্ধতির উন্নয়নে AYUSH (Ayurvedic, Yoga, Unani, Siddha & Homeopath) নামে একটি ভিন্ন মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠা করেছে। বাংলাদেশের জম্নের আগে ১৯৭০ সালে ইউনানী, আয়ুর্বেদিক, হোমিওপ্যাথ ও সিদ্ধা মেডিসিনের জন্য সেন্ট্রাল কাউন্সিল ফর ইন্ডিয়ান মেডিসিন গঠন করেছে। নেপালে  ১৯৮৮ সালে আয়ুর্বেদিক মেডিসিন কাউন্সিল গঠিত হয়েছে। শ্রীলঙ্কা ১৯৮০ সালে Mininistry of Indigenous Medicine নামে একটি মন্ত্রনালয় প্রতিষ্ঠা করেছে। ভুটানে ১৯৬১ সালে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সরাসরি তত্ত্বাবধানে Institute of Traditional Medicine Service গঠিত হয়েছে। মায়ানমার ১৯৫৩ সালে Traditional Medicine Council Law প্রতিষ্ঠা করেছে।
বাংলাদেশে একটি ইউনানি, আয়ুর্বেদিক এবং হোমিওপ্যাথিক কাউন্সিল গঠনের বিষয়ে সুপারিশ করা হয়েছে, কিন্তু আমাদের মতানৈক্যের কারনে আমরা আজ অবধি তা বাস্তবায়ন করতে পারিনি। পার্শ্ববর্তী দেশগুলোর সাথে তুলনামূলক বিশ্লেষণে আমাদেরও এ বিষয়ে দ্রুত কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবে।
স্বাস্হ্য অধিদপ্তরে শাখা নয় আলাদা একটি মন্ত্রনালয় বা অধিদপ্তর করে, দেশীয় চিকিৎসা শিক্ষার উন্নয়, উচ্চ শিক্ষা, প্রচার ও প্রসার এবং এ পদ্ধতির চিকিৎসকদে যথা যথ মর্যাদায় প্রতিষ্টিত করতে হবে। নতুবা এ্যালোপ্যাথিদের দ্বারা দেশীয় চিকিৎসার চিকিৎসকদের নিঃশপেশিত হতে হবে। তাই এই পদ্ধতির চিকিৎসকদের সবাইকে দ্রুত ঐক্যমতে পৌছাতে হবে। মনে রাখতে হবে এমুহুর্তে ঐক্য গড়ে তুলার বিকল্প নাই।
সরকারী ইউনানী ও আয়ুর্বেদিক মেডিকেল কলেজে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে ছয়দফা দাবী নিয়ে আন্দোলনে নেমেছেন চিকিৎসক, ইন্টার্ণ চিকিৎসক ও সাধারন ছাত্র-ছাত্রী। দাবী আদায় করতে হলে রাজপথের পাশা-পাশি লবিং করতে হবে সবকারের উচ্চ মহল সহ প্রধান মন্ত্রী পযর্ন্ত। যেহেতু মাননীয় প্রধান মন্ত্রী নিজে এই পদ্ধতির উন্নয়নের প্রতিস্রুতি দিয়েছেন সেহেতু তাঁর কাছে পৌছাতে পারলে দাবী আদায়ে খুববেশী বেগ পেতে হবেনা।
সরকারী ইউনানী ও আয়ুর্বেদিক মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীদের ও চিকিৎসকদের দাবীগুলো হলঃ
১। অবিলম্বে বাংলাদেশ ইউনানী-আয়ুর্বেদিক মেডিকেল কাউন্সিল গঠন।
২।খসড়া তৈরীকৃত ইউনানী-আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা পদ্ধতি আইন দ্রুত প্রণয়ন।
৩। ইউনানী-আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকদের জন্য জেলা-উপজেলা হাসপাতালে রাজস্ব খাতে সৃষ্ট ও AMC প্রকল্পে সৃষ্ঠ পদগুলো পুরণে দ্রুত সার্কুলার জারী করে জনবল নিয়োগ।
৪। ইন্টার্নশীপ ভাতা বৃদ্ধি করণ।
৫। শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অল্টারনেটিভ মেডিকেল ফ্যাকাল্টি চালু করে উচ্চ শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি।
৬। সরকারী ইউনানী ও আয়ুর্বেদিক মেডিকেল কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালের ফার্মেসী অনুষদ হতে মেডিসিন অনুষদে স্থানান্তর।
এখানে অল্টারনেটিভ শব্দটির সাথে আমি একমত নই, এখানে ইউনানী-আয়ুর্বেদিক ফ্যাকাল্টি হওয়া উচিৎ। এ,এম,সি (অল্টারনেটিভ মেডিকেল কেয়ার) শব্দটি বাদ দিয়ে, ইন্ডিজেনাস বা দেশীয় অথবা ট্রেডিশনাল শব্দটি যুক্ত করতে হবে। অল্টারনেটিভ চিকিৎসক হলে সারা জীবনই বিকল্প দ্বারার চিকিৎসকই থাকতে হবে, মূল দ্বরায় আসতে পারবেন না। ইউনানী-আয়ুর্বেদিক বিকল্প চিকিৎসা নয়, এটাই মূল চিকিৎসা, এটা আমাদের নিজেস্ব চিকিৎসা পদ্ধতি। এ্যালোপ্যাথি মেডিসিন হলো ওয়েস্টার্ন মেডিসিন, কিন্তু ইউনানী-আয়ুর্বেদিক হবে ইন্ডিজেনাস মেডিসিন বা দেশীয় চিকিৎসা পদ্ধতি, বিকল্প চিকিৎসা নয়। বুঝতে হবে ঔষধ ছাড়া অন্য ভাবে চিকিৎসাই হলো অল্টারনেটিব বা বিকল্প চিকিৎসা, যেমন- তাবিজ- কবজ, ঝাড়-ফুক ইত্যাদি। অল্টারনেটিভ শব্দটির সংশোধন প্রয়োজন, না হলে ডাক্তার হতে পারবেন না। এম,সি (মেডিকেল সার্টিফিকেট)  দিতে পারবেন না। মেডিকেলের ব্যাসিক বিষয়ে উচ্চ শিক্ষা অর্জন করতে পারবেন না। সরকারী ভাবে অবস্হান পাবেন না। ওয়েস্টার্ন মেডিসিনের চিকিৎসকরা কোন দিন মূল্যায়ন করবে না।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




All rights reserved: moulvibazartimes.com
Design & Developed BY Popular-IT.Com