শুক্রবার, ২৩ অগাস্ট ২০১৯, ০৪:০৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বাংলাদেশে ডেঙ্গু জ্বর প্রতিরোধে যা করণীয় প্রায় চার বছর ধরে ভারতের আসামের কারাগারে হবিগন্জের কিশর ডেঙ্গু জ্বর ও তার প্রাকৃতিক চিকিৎসা দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ডাঃ আক্তার হোসেন লন্ডনে জুড়ি ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউ,কে-এর ইফতার মাহফিল অনুষ্টিত ইউনানী-আয়ুর্বেদিক বিকল্প চিকিৎসা নয়, এটাই মূল চিকিৎসা, এ চিকিৎসা পদ্ধতির চিকিৎসকদের হয়রানী বন্ধ করতে হরে। বাংলাদেশে ইউনানি, আয়ুর্বেদিক এবং হোমিওপ্যাথিক কাউন্সিল গঠনের সুপারিশ দ্রুত কার্যক্রম গ্রহণ করা প্রয়োজন – ডাঃ মোঃ খায়রুল আলম সিলেট বিভাগে কাল পরিবহন ধর্মঘট ভূমি ব্যবস্থাপনায় সম্মননা পেলেন জুড়ীর ইউএনও শবে বরাত সৌভাগ্য ও অনুকম্পা অর্জনের উপায়
ডেঙ্গু জ্বর ও তার প্রাকৃতিক চিকিৎসা

ডেঙ্গু জ্বর ও তার প্রাকৃতিক চিকিৎসা

ডাঃ আব্দুল হান্নান

আমরা জানি ডেঙ্গু একটি ভাইরাস জনিত রোগ যা এডিস মশা ছড়ায়। ইহার লক্ষন ও প্রতিরোধ সম্পর্কে ব্যাপক প্রচার হচ্ছে। মিডিয়ার কল্যানে আমরা জানতে পারছি। তাই আমি সে দিকে যাচ্ছি না।
যেহেতু এই রোগের জীবানু একটি ভাইরাস, অন্যান্য ভাইরাসের মত এরও এ্যালোপ্যাথিতে কোন কার্যকরী চিকিৎসা বা প্রতিষেধক নাই। তাই আমাদেরকে শারিরীক প্রতিরোধ ক্ষমতা (body immunity) এর উপর ভরসা করে তাকিয়ে থাকতে হয়, এবং লক্ষন ভিত্তিক কিছু চিকিৎসা নিতে হয়। এই লক্ষন ভিত্তিক চিকিৎসাও আবার বডি ইমিউনিটিকে বাঁধাগ্রস্ত করে ও কিছু পার্শ-প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। তাই হাত ঘোটিয়ে ঘরে বসে না থেকে প্রকৃতির আশ্রয় নিন। কিছু ভেষজ রয়েছে  ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে বডি ইমিউনিটিকে এমন ভাবে বাড়িয়ে দেয় যার প্রাকৃতিক প্রতিরক্ষার মোকাবিলায় ভাইরাস অসহায় হয়ে পড়ে।
তাই আসুন জেনে নেই ন্যাচারেল চিকিৎসা পদ্ধতির মাধ্যমে কিভাবে ডেঙ্গু জ্বরকে জয় করতে পারি।

আমি কিছু প্রাকৃতিক চিকিৎসা রিমেডি নিম্নে উল্লেখ করলাম।

গুলঞ্চ ( Giloy):
ইহাতে রয়েছে এন্টি-পাইরেটিক, এন্টি-ইনফ্লামেটরী, ইমিউনোমডিলেটরী বৈশিষ্ট যা ডেঙ্গুর লক্ষন গুলি সারাবে। পাশা পাশি লিভার এবং কিডনি থেকে টক্সিন( toxin) বের করে দিবে। ইহার এন্টি-অক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট দ্বারা ফ্রি-রেডিকেলকে ধ্বংশ করে বডি ইমিউনিটি অনেক গুন বাড়িয়ে দিবে।

ব্যাবহারঃ
সামান্য পরিমান রস বের করে তাহার সাথে দুই চামচ মধু মিশিয়ে একই পরিমানে রোজ ২ বার সেবন করুন। ৪-৫ দিন।
বিঃদ্রঃ ইহা ৫ বছরের কম বয়সি বাচ্ছাদের দেয়া যাবে না।

পেঁপে পাতাঃ
ডেঙ্গুতে পেঁপে পাতার রস অত্যন্ত কার্যকরী। এই রোগে ভাইরাস ব্লাড প্লাটিলেটকে আক্রমন করে ধ্বংশ করে যার কারনে প্লাটিলেট কাউন্ট কমতে থাকে। পেঁপে পাতা বডি ইমিউনিটিকে বাড়িয়ে দিয়ে ব্লাড প্লাটিলেট কাউন্ট কমা প্রতিরোধ করে। পাশা পাশি প্লাটিলেট কাউন্ট বাড়িয়ে দেয়। ইহা লার্ভাসাইডাল ভেষজ হিসাবে মশার লার্ভাকে ধ্বংশ  করেতে কার্যকারী ভূমিকা রাখে।

সেবনঃ
৭-৮টি সতেজ পাতা নিয়ে মধ্যের ডাটাগুলি ফেলে দিয়ে ইহা পিশে নিন বা ব্লেন্ড করে একটি পরিস্কার কাপড়ে নিয়ে রস নিংড়ে বের করুন। ২ টেবিল চামচ পরিমান ৩ ঘন্টা অন্তর ২-৩ দিন খাওয়ান। লক্ষন বেশী দিন থাকলে আরও কয়েক দিন চালান।

মিষ্টি আলুঃ
মিষ্টি আলু ও তার পাতা ডেঙ্গু নিরাময়ে আরও একটি কার্যকরী ভেষজ যাহা বডি ইমিউনিটি এমন ভাবে বাড়িয়ে দেয় যে, এই ভাইরাস গুলি শরির প্রতিরক্ষার বিরুদ্ধে আসহায় হয়ে পড়ে।

সেবনঃ
মিষ্টি আলু দিয়ে স্যাুপ তৈরী করে বার বার খাওয়ান। ইহার পাতা পেঁপে পাতার মত রস ভের করে খাওয়ান। আথবা শাঁক রান্না করে রোগীকে খেতে দিন, দেখবেন কারিশমা।

তুলসীঃ
তুলসী অন্যান্য ভাইরাস জ্বরের মত ডেঙ্গু জ্বরেও খুবই কার্যকরী ভেষজ। ইহায় রয়েছে জীবানু ধ্বংশকারী ক্ষমতা। এন্টি-পাইরেটিক (জ্বর নিরোধক) ক্ষমতা এবং ইহা ইমিউনিটিকেও বৃদ্ধি করে। যার দরুন দ্রুত রোগ সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে।

সেবনঃ
১০ টি তুলসী পাতা আধা লিটার পানিতে জ্বাল করতে থাকুন। পানি যখন অর্ধেক হবে তখন নামিয়ে ছেঁকে নিন। ইহা দৈনিক কয়েক বার পান করতে দিন। এভাবে কয়েক দিন চালান।

ডাবঃ
ডাবও ডেঙ্গু জ্বরে একটি কার্যকরী ভেষজ। ইহা লিভার থেকে টক্সিন বের করে দেয় ও বডি ইমিউনিটি বাড়ায়। পাশা পাশি জ্বরের জন্য শরীরে তৈরী হওয়া পানি শুন্যতা প্রতিরোধ করে।

জয়েন্ট ব্যথা থাকলে তার জন্যঃ
১। ভেরেন্ডার তেল দৈনিক কয়েক বার মালিশ করুন ব্যথা অনেক কমে যাবে।
এছাড়া ডেঙ্গু চিকিৎসার অন্যান্য পরামর্শ গুলি মেনে চলুন। ভয়ের কোন কারন নেই সুস্হ্য হয়ে যাবেন- ইনশাআল্ললাহ।

লেখক – ডাঃ আব্দুল হান্নান (ন্যাচারেল মেডিসিন বিশেষজ্ঞ)

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




All rights reserved: moulvibazartimes.com
Design & Developed BY Popular-IT.Com